রোববার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ৩ পৌষ ১৪২৪, ২৮ রবিউল আওয়াল, ১৪৩৯ | ০৯:৩৫ অপরাহ্ন
বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ০৮:৪৬:৫৮ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

এএফসি লড়াইয়ে সৌদি আরবের মুখোমুখি বাংলাদেশ

 

শক্তিশালী ভারতকে টাইব্রেকার হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ দল। সেই স্মৃতি এখনো বেশ তরতাজা। সাফ জয়ের সুখস্মৃতি নিয়ে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ দল আজ মাঠে নামছে এএফসি মিশনে। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বের ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আজ সৌদি আরব। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৬টায় ম্যাচটি শুরু হবে। সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশ টেলিভিশন। চলতি ধারাবিবরণী শোনা যাবে বাংলাদেশ বেতারে। এই ম্যাচে সাধারণ গ্যালারির টিকেটের মূল্য ৩০ টাকা এবং ভিআইপি গ্যালারির টিকেটের মূল্য ৫০ টাকা ধার্য্য করা হয়েছে।

এএফসি চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে সাফজয়ী শাওনরা অবশ্য কঠিন গ্রুপে রয়েছে। ‘ডি’ গ্রুপে তাদের প্রতিপক্ষ মধ্যপ্রাচ্যের দুই দল সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। র‌্যাংকিং আর শক্তিতে যোজন যোজন এগিয়ে তারা। তবে ঘরের মাঠে খেলা হওয়ায় খানিকটা এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশের কিশোররাও। তার উপর রয়েছে আত্মবিশ্বাস। সব মিলিয়ে সৌদি আরবের বিপক্ষে নিজেদের সেরাটা দিতে প্রস্তুত শাওনরা।

আজকের এই ম্যাচ নিয়ে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ দলের কোচ সৈয়দ গোলাম জিলানী বলেন, ‘এই দলটি নিয়ে আমরা সাফ (অনূর্ধ্ব ১৬) চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। বলা চলে ব্যালেন্স টিম। যদিও বয়স পার হয়ে যাওয়ার কারণে দলের গুরুত্বপূর্ণ দুজন খেলোয়াড় বাদ পড়েছে (সাদ ও খলিল)। আর ইনজুরির কারণে দলে থাকছেন না আতিকুজ্জামান। তবে বয়সভিত্তিক দলের মধ্যে পার্থক্য উনিশ-বিশ। সাফের মতো ভালো করতে পারলে ইতিবাচক ফলাফল আসবে। সবচেয়ে বড় কথা হলো ম্যাচটা আমাদের ঘরের মাঠ। ভালো করার প্রত্যয় থাকবে।’

অধিনায়ক শাওনের কণ্ঠেও আত্মবিশ্বাসের সুর, ‘সাফ জয় আমাদের প্রেরণা হয়ে কাজ করবে এই বাছাইপর্বে। সৌদি আরব আমাদের থেকে অনেক এগিয়ে। তার পরও আমাদের ঘরের মাটিতে ম্যাচ। তাই চেষ্টা থাকবে নিজেদের সেরাটা মেলে ধরার। সাফের মতো টিমস্পিরিটটা ধরে রাখতে চাই।’
সৌদি আরবের কোচ মোহাম্মদ আল আবদাল্লির মূল পর্বে যাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী। তিনি বলেন, ‘ম্যাচটা খুব সহজ হবে না। তবে আমরা আশাবাদী মূল পর্বে ওঠার। বাছাইপর্বের জন্য প্রায় ছয়-সাত মাস প্রস্তুতি নিয়েছি। গত তিন মাস কঠোর পরিশ্রম করেছি।’

২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে ১৬ দল নিয়ে ভারতে অনুষ্ঠিত হবে এএফসি চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্ব। স্বাগতিক হওয়ায় বাছাইপর্ব খেলতে হচ্ছে না ভারতকে। বাছাইপর্বের ৪২টি দল থেকে ১১ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন সুযোগ পাবে মূল পর্বে খেলার। তাদের সঙ্গে সেরা চারটি রানারআপ দলও সুযোগ পাবে মূল পর্বে। সেক্ষেত্রে ‘ডি’ গ্রুপে সৌদি আরব ও আরব আমিরাতের মতো কঠিন দলের সঙ্গে লড়াই করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা বলতে গেলে বাংলাদেশের জন্য অসম্ভব। তবে দুই ম্যাচের যেকোনো একটিতে জয় পেলেই গ্রুপ রানারআপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে স্বাগতিকদের জন্য। তার উপর একটিতে যদি ড্র করা যায় তাহলে মূল পর্বে খেলার সম্ভাবনাও থাকবে অনেক।

 

আরো খবর